মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বার ২০২০ ,

  • হোম / বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

প্রকাশ :০৫ ডিসেম্বার ২০১৯ , ১২:৫৩ AM

শেকৃবি’র গবেষকদল উদ্ভাবন করলেন মাছের বিস্কুট ও চানাচুর

single image

শুনতে অবাক লাগলেও সত্যি। শেকৃবির ফিশারিজ, একোয়াকালচার এন্ড মেরিন সায়েন্স অনুষদের একদল গবেষক অনুষদীয় অর্থায়নে কয়েক মাস যাবৎ গবেষণা করে বাংলাদেশে এই প্রথম পাঙ্গাস মাছের বিস্কুট ও চানাচুর ((SAU Fish Biscuit-1& SAU Fish Chanachur-1) ) এবং সিলভার কার্প মাছের বিস্কুট ও চানাচুর (SAU Fish Biscuit-2 & SAU Fish Chanachur-2) উদ্ভাবন করতে সক্ষম হন।


গবেষণা কার্যক্রমটি পরিচালনা করেন মোঃ মাসুদ রানা, প্রভাষক, ফিশিং এন্ড পোষ্ট হার্ভেস্ট টেকনোলজি বিভাগ, শেকৃবি, ঢাকা। গবেষণাটি সার্বিক তত্ত্বাবধান করেন অত্র অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. কাজী আহসান হাবীব। গবেষণা কার্যক্রমটির সার্বিক সহযোগিতা করেন ড. এ. এম. সাহাবউদ্দিন, চেয়ারম্যান, একোয়াকালচার বিভাগ এবং ড. মোঃ মহিব্বুল্লাহ, চেয়ারম্যান, ফিশিং এন্ড পোষ্ট হার্ভেস্ট টেকনোলজি বিভাগ, শেকৃবি, ঢাকা। 


বর্তমানে বাংলাদেশ মাছ উৎপাদনে স্বয়ংসম্পন্ন, প্রতি বছর লক্ষ্য মাত্রা হতে অতিরিক্ত মাছ উৎপাদিত হচ্ছে। অন্যদিকে পাঙ্গাস ও সিলভার কার্প মাছ দুটির উৎপাদনের হার বেশী কিন্তু ভোক্তাদের চাহিদা ও বাজার দর দিন দিন কমতে থাকায় চাষীরা পাঙ্গাস ও সিলভার কার্প মাছ চাষ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে। মাছ দুটির প্রতি ভোক্তাদের চাহিদা বৃদ্ধি সহ মূল্য সংযোজন (ভ্যালু এডেড) পণ্য উৎপাদন করতে না পারলে অদূর ভবিষ্যতে মাছ দুটিকে চাষী পর্যায়ে পাওয়া যাবে না বলে গবেষকরা মনে করেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে পাঙ্গাস ও সিলভার কার্প মাছ দুটির প্রতি ভোক্তাদের চাহিদা বৃদ্ধি ও চাষীদের আগ্রহ বৃদ্ধির লক্ষ্যে শেকৃবির ফিশারিজ, একোয়াকালচার এন্ড মেরিন সায়েন্স অনুষদের একদল গবেষক তুলনামূলক কম মূল্যের মাছগুলোকে প্রক্রিয়াজাত করে সুস্বাদু ও পুষ্টি গুন সমৃদ্ধ বিস্কুট ও চানাচুর উদ্ভাবন করেন। যা একই সাথে মানুষের দেহের প্রয়োজনীয় বিভিন্ন পুষ্টি উপাদান , ভিটামিন ও মিনারেল সরবারহ করবে। 


শেকৃবি'র গবেষকদল উদ্ভাবন করলেন মাছের বিস্কুট ও চানাচুর

উদ্ভাবিত মাছের বিস্কুট ও চানাচুর। গবেষণাটি পরিচালনা করেন প্রভাষক মাসুদ রানা পলাশ

উদ্ভাবিত খাদ্য দুটি যে কোন সময় খাবার উপযোগী মোড়কজাত পণ্য হিসাবে বানিজ্যিকভাবে উৎপাদন সম্ভব। ফলে চাষী পর্যায়ে পাঙ্গাস ও সিলভার কার্প মাছ উৎপাদনে আগ্রহ বাড়বে। তাছাড়াও পুষ্টি গুনে ভরপুর এবং প্রাণীজ আমিষ সমৃদ্ধ এই পণ্যগুলো ছোট ছেলেমেয়েদের পুষ্টি চাহিদা পূরণ এবং গর্ভবতী নারীদের পুষ্টির সংকুলানে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে বলে গবেষক দল মতামত প্রদান করেছেন। প্রাথমিকভাবে গবেষনায় দেখা গেছে মাছের বিস্কুট ও চানাচুরে মোটামুটি ৪০-৫০ শতাংশ আমিষ, ২০-৩০ শতাংশ চর্বি, ২০-২৫ শতাংশ শর্করা, ১০-১৫ শতাংশ মিনারেল এবং ১০-১২ শতাংশ ফাইবার বিদ্যামান।


ইতোমধ্যে গবেষকদল তাদের উদ্ভাবিত বিস্কুট ও চানাচুর শেকৃবির উপাচার্য প্রফেসর ড. কামাল উদ্দিন আহাম্মদ এবং ফিশারিজ, একোয়াকালচার এন্ড মেরিন সায়েন্স অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. কাজী আহসান হাবীব এর নিকট হস্তান্তর করেছেন। মাননীয় উপাচার্য মহোদয় উদ্ভাবিত পণ্য খেয়ে ভূয়সী প্রসংশা করেন এবং এ ধরনের গবেষণা পরিচালনায় সর্বাত্তক সহযোগিতা করবেন বলে আশ্বাস প্রদান করেন । এ ধরনের মূল্য সংযোজিত মাছের উদ্ভাবন পাঙ্গাস ও সিলভার কার্প মাছের মত স্বল্পমূল্যের মাছ চাষে চাষীদেরকে সঠিক বাজার মূল্য পেতে সহায়তা করবে এবং সাথে সাথে বাংলাদেশের জনগণের আমিষের চাহিদা পূরণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

সময়ের বাংলা/এবি

এই বিভাগের আরো খবর ::

Image

নামাজের সময়সূচী

সূর্যোদয় ভোর ৫ : ৪০ টা
ফজর ভোর ৬ : ০০ টা
যোহর দুপুর ১: ০০ টা
আছর বিকাল ৪ : ৩০ টা
মাগরিব সন্ধা ৬ : ৩০ টা
এশা রাত ৮ : ১৫ টা
সূর্যাস্ত সন্ধ্যা ৬ : ০০

অনলাইন জরিপ

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘সিটি নির্বাচনে নিশ্চিত পরাজয় জেনেই বিএনপি নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার চেষ্টা করছে।’ আপনি কি তা-ই মনে করেন?