সোমবার, ২৬ অক্টোবার ২০২০ ,

প্রকাশ :০৯ নভেম্বার ২০১৯ , ১০:৫৫ AM

মাঝে - মাঝে মন চায় যদি মরে যেতে পারতাম

single image

বাবা হারা হতদরিদ্র মায়ের সন্তান রফিক। সংসারে একটু সূখ শান্তি আর অসহায় মা আর ছোট দু’বোনের মূখে দু বেলা দু’মুঠো ভাত , কাপড়ের আশায় ধার-দেনা করে সিঙ্গাপুর পাড়ি দিয়েছিলেন রফিকু ইসলাম। সিঙ্গাপুরের যাওয়ার পর ভালোই চলছিলো রফিকের ছোট্ট সংসার। অভাব –অনটনের সংসারে সুখের দেখা পেয়েছিলো।

কিন্তু সেই সুখ রফিকের কপালে সইলো না, সিংগাপুর থাকাকালীন প্রায়ই তার শরীরে প্রচন্ত জর আসতে শুরু করে। একপর্যায়ে ডাক্তারের কাছে গেলে- রফিকের শারিরীক পরিক্ষা করার পর চিকিৎসকরা তার দুটি কিডনি অচল হয়ে গেছে বলে জানান। সিংগারপুরের কোম্পানী তাকে কিছুদিন প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বাংলাদেশে ফেরৎ পাঠায় ।

রফিকুল ইসলাম গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার রশিদপুর গ্রামের মৃত জলিল উদ্দিন এর ছেলে। কিডনী বিশেষজ্ঞ ডাক্তারা বলেছেন রফিকের দুটি কিডনিই অকেজো। প্রতি সপ্তাহে দুবার ডায়ালাইসি করতে হবে। যেখানে দু’বেলা ঠিকমতো খাবার জুটে না,সেখানে সপ্তাহে দু্বার ডায়ালাইসিসের খরচের টাকা কীভাবে যোগাড় করবে - এটা বলার অপেক্ষা রাখে না। তারপরও বেঁচে থাকার তাগিদে খুব কষ্ট করে প্রতি সপ্তাহে দুইবার ডায়ালাইসিস করে যাচ্ছে তার পরিবার।

বিশাল খরচের আর কুলোচ্ছে না তার পরিবার। তবুও অসহায় মা-বোনদের মুখের দিকে তাকিয়ে ভাবেন এবং কী করবেন বুঝতে পারছে না রফিক। সংসারের সবার কথা ভেবে বাঁচতে চায়। রফিক না থাকলে সংসারের কারো যে কিছুই হবে না। অন্ধকার হয়ে যাবে তাদের পৃথিবী। রফিকে সাথে কথা বলার সময় এক সময় বলেই ফেলল - ভাই মাঝে মাঝে মন চায় যদি মরে যেতে পারতাম তাহলে মনে হয় ভালো হতো। কারণ টাকা পয়সা যা –ছিলো তা শেষ। এখন চারদিকে শুধু অন্ধাকার মনে হচ্ছে।

সন্তানের কষ্ট সইতে না পেরে গর্ভধারনী মা কিডনি দিতে রাজি হয়। তাতেও বাঁচার আশার আলো থেকে বঞ্চিত হয় রফিক। মায়ের রক্তের গ্রুপের সাথে গ্রুপ না মিলায় কিডনি দিতে পারছেন না । জমি- জমা, ধারদেনা করে যে টাকা সংগ্রহ করছিলো তা এখন শেষের পথে। এখন ব্যায় বহন করা তার পরিবারের জন্য অসম্ভাব হয়ে পড়েছে। এদিকে তার কিডনি দুটি প্রতিস্থাপন করা জরুরী বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। অসহায় রফিকের পরিবারের পক্ষ থেকে চিকিৎসার এত টাকা বহন করা সম্ভব নয়। বর্তমানে তিনি নিজ বাড়িতে মুত্যুর সাথে লড়ছেন।

এ অবস্থায় রফিকের চিকিৎসায় এগিয়ে আসতে সমাজের দাতা ব্যক্তি, জনপ্রতিনিধি, সরকারি হৃদয়বান কর্মকর্তা-কর্মচারী বিভিন্ন সরকারী বে-সরকারী প্রতিষ্ঠান এবং বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন রফিকের মা রাহিমা বেগম।

যোগাযোগের ঠিকানা: মোঃ, রফিকুল ইসলাম, পিতা- মৃত জলিল উদ্দিন,মাতা: রহিমা বেগম, গ্রাম- রশিদপুর ( বালুকভের) , উপজেলা- কালিয়াকৈর, জেলা- গাজীপুর, মোবাইল নং- ০১৬৩৩৩৯৩৬৪৭।

সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা : রফিকুল ইসলাম. সঞ্চয়ী হিসাব নং ৪০২৬১৭১৫৩৩০০, এবি ব্যাংক লিমিটেড, কালিয়াকৈর শাখা,গাজীপুর। বিকাশ নম্বর ০১৩০১৭৮৫৬৩৫।

এই বিভাগের আরো খবর ::

Image

নামাজের সময়সূচী

সূর্যোদয় ভোর ৫ : ৪০ টা
ফজর ভোর ৬ : ০০ টা
যোহর দুপুর ১: ০০ টা
আছর বিকাল ৪ : ৩০ টা
মাগরিব সন্ধা ৬ : ৩০ টা
এশা রাত ৮ : ১৫ টা
সূর্যাস্ত সন্ধ্যা ৬ : ০০

অনলাইন জরিপ

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘সিটি নির্বাচনে নিশ্চিত পরাজয় জেনেই বিএনপি নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার চেষ্টা করছে।’ আপনি কি তা-ই মনে করেন?